Breaking News

মুসলিম মেয়ে হয়েও প’র্ণ জ’গতে কেন মিয়া খলিফা? কা’রণটা জানলে চোখের জল আ’টকাতে পারবেন না

আজ আমরা জানবো এমন এক তরুনীর কথা যিনি মুসলমান হয়েও প’নস্টার, মিয়া খলিফা। নী’ল দুনিয়া কাঁ’পানো একটি নাম। খলিফা আরবি শব্দ যার বাংলা অর্থ প্রতিনিধি। কিন্তু এই নারী পোশাক নিয়ে রয়েছে কোটি কোটি সমালোচনা। মাথায় হিজাব পরা মেয়েটি আসলে কি কারোর প্রতিনিধি!মিয়া খলিফা, মিয়া ক্যা’লিস্টা হিসেবে পরিচিত। তার জন্ম ফেব্রুয়ারি 10,1993

তিনি একজন মডেল তিন্নি 2014 থেকে 2015 সাল প’র্যন্ত প’র্নোগ্রা’ফিতে অভিনয় করেছেন। বৈরুতে জ’ন্ম নিয়ে খলিফা 2000 সালে মা’র্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্থানান্তরিত হন। অক্টোবর 2014 সালে তিনি প’র্নো’গ্রাফিতে অভিনয় শুরু করেন এবং ডিসেম্বরের প’র্নহাব প’র্ন’স্টারদের তালিকা এক নম্বর স্থান পান।

তার পেশা নির্বাচন মধ্যপ্রাচ্যের বিতরকের বিষয়ে হয়েছিল বিশেষ করে একটি ভিডিও। যেখানে তিনি ইসলামী হিজাব পরিহিত অবস্থায় যৌ’ন কর্ম সঞ্চালন করেছিলেন। যদিও প্রায় তিন মাস পরেই তিনি প’র্ন শিল্প থেকে অবসর নেন। যখন তিনি একটি রেস্তোরায় কাজ করছিলেন তখন একটি কাস্টমার তাকে রেড লাইট ইন্ডাস্ট্রির খোঁজ ওঠেনা বেড়ে উঠলেও পরবর্তীতে ।

রক্তের স্বাদ পাওয়া বাঘের মত একজন সে বিখ্যাত হওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। তার পরিবার ছিল ক্যাথলিক এবং তিনি সেই ধর্মের অধীনে বেড়ে উঠছে। কিশোর বয়সে তিনি মোর ঘুম বিগ আংটি মেরিল্যান্ডে বসবাস করেন এবং উচ্চ বিদ্যালয় বাজাতেন।এক বছর পর ইউনিভার্সিটি অফ টেক্সাস আট এল পাসো থেকে ইতিহাস বিষয়ে বিএ ডিগ্রি নেন তিনি।

খলিফা প’র্নো’গ্রাফিক চলচ্চিত্র শিল্পে প্রবেশ করেন অক্টোবর 2014 সালে। একটি স্থানীয় ফাস্টফুড রেস্তোরাঁ এ কাজ করার সময় একজন ব্যক্তি সান্নিধ্যে তাকে জিজ্ঞেস করা হয় তিনি কোন চলচ্চিত্রে কাজ করতে আগ্রহী কিনা! পনেরো সালে হিসেবে 1.5 মিলিয়নেরও অধিক দর্শক সংখ্যার পাশাপাশি 22 বছর বয়সী খলিফা প্রা’প্তবয়’স্ক ভিডিও শেয়ারিং ভাবে সর্বাধিক অনুস’ন্ধানকৃত মডেল হিসেবে উন্নীত হন।

সে বছর 28 ডিসেম্বর এ প’র্ন হাব তাদের ওয়েবসাইটের নাম্বার ওয়ান স্থানে খলিফার নাম প্রকাশ করে। বহুদর্শী লিসা অ্যান এর পরিবর্তে সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের জনমনে কঠিন সমালোচনার অ’বতারণা করে। যেখানে ল’জ্জা , তার পেশা জীবন কল’ঙ্কময় বলে মনে করা হয়। এবং যে কারণে দেশেও খলিফা সম্মান হানি ঘটে।শীর্ষ স্থান অধিকার এর পর পর তিনি অনলাইন মৃ’ত্যু-হু’মকি বান যার মধ্যে ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দ্য লেভান্ট একটি হ’স্ত’নির্মিত

ছবিতে তাকে শির’শ্ছে’দ জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে এমন দেখানো হয়।সত’র্কবার্তায় তাকে নরকে যেতে হবে বলেও দাবি জানানো হয় যার জবাবে তিনি বলেন আমি সম্প্রতি একটু চিন্তিত বিমানের সংবাদপত্র খলিফার সমালোচনামূলক নিবন্ধ লিখেছেন ইস এ অঞ্চলের অন্যান্য ঘটনাগুলির কারণেই তো বলে মনে করেন। ওয়াশিংটন পস্ট’ এর সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে খলিফা বলেন বি’তর্কি’ত দৃ’শ্য ছিল এবং এটি সেভাবে গ্রহণ করা উচিত এবং

চলচ্চিত্রে যেকোনো তুলনায় অনেক বেশি নেতিবাচক ভাবে ইসলামকে চিত্রিত করা হয় বলে তিনি দাবি করেন।যা সার্বজনীন তার প্রাপ্তবয়স্ক কর্মী হয়ে ওঠার সিদ্ধান্ত সমর্থন জানানোর জন্য মুখ খোলেন তাদের মধ্যে ছিল ব্রিটিশ লেবানিজ লেখক নাসির আতাল্লা। এই নৈ’তিক আবেগ দুটি কারণের জন্য ফুল প্রথম এবং সর্বাধিক একজন নারী হিসেবে তিনি তার শরীরের সঙ্গে যে কোন কিছু করার অধিকার রাখেন। কলকাতার বিতর্ক সম্পর্কে তিনি মন্তব্য করেছিলেন।

তিনি বলেন তার পেশা নির্বাচনের কারণে তার বাবা-মা তার সাথে কথা বলা বন্ধ করে দেন।ফোন হাত থেকে প্রাপ্ত উপাত্ত অনুযায়ী 34 জানুয়ারি 2015 সালে মিয়া খলিফার অনুসন্ধানকারী পাঁচ দফা উন্নীত হয় ‌।যার এক চতুর্থাংশ অনুসন্ধা’নকারী ছিলেন লেবানন থেকে অনুসন্ধানকারী ছিল মধ্যপ্রাচ্যে সিরিয়া এবং জর্ডান এর কাছাকাছি অঞ্চল থেকে। হিসাব সম্পর্কিত বিতরকের কারণ এ 2016 সালে তিনি ব্রিটিশ পুরুষ ম্যাগাজিন লোডেড কর্তৃক তাদের দ্য ওয়ার্ল্ডস মোস্ট প’র্ন স্টা’র্স তালিকায় পঞ্চম স্থানে

অবস্থান নেন।জুলাই 2016 সালে দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে এক সাক্ষাৎকারে খলিফা জানায় যে তিনি কেবল তিন মাসের জন্য প’র্নো’গ্রা’ফিতে অভিনয় করেছিলেন এবং এক বছর আগেই বংশী ব ছেড়ে দিয়েছিলেন আরো স্বাভাবিক কাজে যুক্ত হতে।এটা আমার বিদ্রোহী পর্যায়ে ছিল বলে মনে করি এটা সত্যি আমার জন্য ছিল না আমি ধীরে ধীরে নিজেকে এর থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে চেষ্টা করি। মি 2016 অনুযায়ী খলিফা এখনো একজন ওয়েব ক্যা’ম মডেল

হিসেবে কাজ করছেন।যখন আই এস এর পক্ষ থেকে মৃত্যু’র হু’মকি আসতে থাকে তখন সবকিছুই নিয়’ন্ত্র’ণের বাইরে চলে যায়। তাই আমাকে সরে আসতে হয়। তিনি বলেন এ পেশায় খুব দ্রুতই আমি জনপ্রিয়তা পেয়ে যায়। বিষয়টি আমি বেশ উপভোগ করতাম শেষ হয়েছে এটা করতে হয়েছে তা করতে চাইনি আমি। প্রতিবাদ করতে চেয়েছিলাম কিন্তু পারিনি আমাকে পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে। ছবিতে রবি নাইট সিদ্ধান্তটা ভুল ছিল বলে মনে করেন 25 বছর বয়সী এই অভিনেত্রী।

এরফলে ভাবমূ’র্তি ন’ষ্ট হয়েছে বলে এখন অনুত’প্ত তিনি এখন তিনি স্প’র্শ আউট অফ বাউন্ডস এর উপস্থাপিকা হিসেবে কাজ করছেন। খলিফা বর্তমানে মায়ামি ফ্লোরিডা বসবাস করছেন। ফেব্রুয়ারি 2011 সালে 18 বছর বয়সের স্বল্প সময় পরই খলিফা একজন মার্কিন ব্যক্তিকে বিয়ে করেন।

About Utsho

Check Also

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শা’রীরিক অ’বস্থার উ’ন্নতি

করোনায় আক্রান্ত হয়ে কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.