Breaking News

বাবা-শ্ব’শুর এমপি, শাশুড়ি উপজে’লা চে’য়ারম্যান, নিজে ওয়ার্ড কা’উন্সিলর : যেভাবে চলতেন ইরফান সেলিম

বাপ সং’সদ সদস্য, শ্বশুরও সং’সদ সদস্য, শাশুড়ি উপজে’লা চেয়ারম্যান, নিজে ওয়ার্ড কাউন্সিলর। যে কারণে তার দাপটই আলাদা। ক্ষ’মতা ও দাপটে বাবা হাজী সেলিমকেও

ছাড়িয়েছেন এরফান সেলিম। যখন তখন মানুষের সাথে বেয়াদবি, মানুষকে অ’পমান অ’পদস্থ আর মা’রধর করা অনেক আগে থেকেই তার অভ্যাস। স্থানীয় সূত্র এসব ত’থ্য

জানিয়েছে। অপরের বাড়ি দ’খল আর চাঁ’দাবাজির অ’ভিযোগ না থাকলেও ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডে তার রয়েছে বিশাল নি’য়ন্ত্রণ। বাইরে চলতে গেলে তার লাগে নিরাপত্তা রক্ষী, যাদের সবাই অ’স্ত্রধারী। এর মধ্যে বৈধ আর অ’বৈধ অ’স্ত্র দু’টিই রয়েছে।

বর্তমানে ক্ষ’মতাসীন দল আওয়ামী লীগে অনেকটা কোণঠাসা হাজী সেলিম একসময় প্রায়ই আলোচনার শীর্ষে উঠে আসতেন। ক্ষ’মতায় থাকাকালীন, কী ক্ষ’মতার বাইরে তাকে নিয়ে

আলোচনা হতোই। বলতে গেলে অনেক দিনই সেই আলোচনা ছিল না। গত রোববার সন্ধ্যায় নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মা’রধর করে আবারো আলোচনায় উঠে এলো হাজী সেলিমের

পরিবার। আলোচনায় না থাকলেও পরিবারটি যে একেবারেই নিশ্চুপ বসেছিল তেমনটি নয়। গতকাল সোমবার ২৬, দেবীদাসঘাট লেনের হাজী সেলিমের বাড়িতে অ’ভিযান চা’লিয়ে র্যাব সদস্যরা সেই প্রমাণই পেলেন। বাসা থেকে উ’দ্ধার হলো অ’বৈধ আ’গ্নেয়াস্ত্র, গু’লি, ম’দ-বিয়ার, ওয়াকিটকি এবং হ্যান্ডকাফ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আশপাশের সব কিছু মনিটরিং করতে হাজী সেলিমের বাসায় গড়ে তোলা হয়েছিল আধুনিক রেডিও ফ্রিকোয়েন্সিসহ অত্যাধুনিক কন্ট্রোল রুম। এতে ছিল আধুনিক

ভিপিএস (ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার), ৩৮টি ওয়াকিটকি এবং ড্রো’নসহ বিভিন্ন ডিভাইস। রাষ্ট্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের (ভিভিআইপি) নিরাপত্তায় নিয়োজিত এলিট বাহিনীর কাছে

যেসব সরঞ্জাম থাকে, সে রকম সরঞ্জাম পাওয়া গেছে ওই বাসায়। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যদের ফাঁকি দিয়ে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষায় এই কন্ট্রোল রুম ব্যবহার করা হতো বলে র্যাবের ধারণা। হাজী সেলিমের আট তলা ভবনের তিন ও চার তলা থেকে এসব সরঞ্জাম উ’দ্ধার করা হয়।

এরফান সেলিমের বাবা হাজী সেলিম একজন সং’সদ সদস্য। তার শ্বশুর একরাম চৌধুরী নোয়াখালী সদরের স’রকারদলীয় সং’সদ সদস্য। তিনি জে’লা আওয়ামী লীগেরও সেক্রেটারি।

আর শাশুড়ি হলেন নোয়াখালীর কবিরহাট উপজে’লার চেয়ারম্যান। উকিল শ্বশুরও আওয়ামী লীগের একজন প্রভাবশালী নেতা। আর নিজে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ৩০ নম্বর

ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। এসব কারণে তার ক্ষ’মতাই আলাদা। ইতঃপূর্বেও অনেক মানুষকে তিনি মা’রধর করেছেন বলে অ’ভিযোগ আছে। তিনি একরাম চৌধুরীর মেজ মে’য়ে তাসরিন জেরিন চৌধুরীর স্বা’মী। হাজী সেলিমেরও মেজ ছেলে তিনি।

গত সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি কাউন্সিলর পদে জেতেন। তার প্রতিদ্ব’ন্দ্বী ছিলেন হাজী সেলিমের ভাগ্নে হাজী মোহাম্ম’দ হাসান পিল্লু। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে

নির্বাচনে জয়লাভের পর তিনি আরো বে’পরোয়া হয়ে ওঠেন বলে জানা যায়। দৃশ্যত তিনি বাবা হাজী সেলিমের ব্যবসা দেখাশোনা করে আসছেন বলে জানা যায়। তবে আন্ডারওয়ার্ল্ডে অনেকের সাথেই তার ঘনিষ্ঠ সম্প’র্ক রয়েছে বলে জানা যায়।

Check Also

হাতির পিঠে যোগাসন, প’ড়ে গিয়ে মা’রাত্মক আ’হত রামদেব (ভিডিও)

উপমহাদেশের প্রখ্যাত যোগগুরু বাবা রামদেব হাতির পিঠে যোগ আসনে বসেছিলেন। আসনরত অবস্থায় একপর্যায়ে তিনি মাটিতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *