Breaking News

নম্বর প্লেটের কোন বর্ণের কী অর্থ?

ভাষার ভিত্তি বর্ণমালা। আর এই বর্ণমালা দিয়েই বুঝানো হয়ে থাকে নানা ধরনের সাংকেতিক অর্থ। যেমন গাড়ির নম্বর প্লেটের বর্ণগুলো দিয়ে বুঝানো হয়ে থাকে বিভিন্ন ধরনের গাড়ির শ্রেণিবিভাগ। কিন্তু গাড়ির নম্বর প্লেটে দেয়া যে বর্ণ বা সংকেত থাকে তা ঠিক কী’ বুঝানো হয়, তা কি কখনও ভেবে দেখেছেন?

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সূত্রে জানা গেছে, গাড়ির নম্বর নির্ধারণ করার জন্য বিআরটিএ- এর একটি নির্দিষ্ট ফরম্যাট রয়েছে। শহরের নাম- গাড়ির ক্যাটাগরি ও গাড়ির নম্বর। এই ফরম্যাটের মাঝের অংশে গাড়ির ক্যাটাগরি বুঝাতে বাংলা বর্ণগুলো ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

একেক বর্ণ দিয়ে একেক গাড়ির ক্যাটাগরি বুঝানো হয়ে থাকে। নম্বর প্লেট দেয়ার ক্ষেত্রে বিআরটিএ- এর নিয়ম অনুযায়ী গাড়ির সিসির প্রকারভেদ, ব্যবহার বিধির ক্যাটাগরি অনুযায়ী নম্বর প্লেট দেয়া হয়।

যেমন, ‘ঢাকা মেট্রো য ১১-৩৪৫৬’। এখানে, ‘ঢাকা মেট্রো’ দ্বারা বোঝানো হয়েছে গাড়িটি ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার আওতাধীন। ‘য’ হচ্ছে শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গাড়ির চিহ্নকারী বর্ণ। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাধীন সব গাড়ি ‘য’ বর্ণ দ্বারা চিহ্নিত করা হবে। পরবর্তী ‘১১’ হচ্ছে গাড়িটির রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং ‘৩৪৫৬’ হচ্ছে গাড়ির সিরিয়াল নম্বর।

ক- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটর গাড়ি (ছোট, সর্বোচ্চ ১০০০ সিসি)।
খ- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটর গাড়ি (মাঝারি, ১০০১ থেকে ১৩০০ সিসি)।
গ- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটর গাড়ি (১৩০১ থেকে ১৫০০ সিসি)।

ঘ -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিগত যাত্রী পরিবহন (জীপ, স্টেশন ওয়াগন)।
ঙ -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত অটো টেম্পু (ব্যক্তিগত)।
চ -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিমালিকানাধীন সেবা (মাইক্রোবাস) – মাইক্রোবাস, human hauler,স্কুল বাস।

ছ -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত স্বাস্থ্য সেবা, অ্যাম্বুলেন্স, ভ্রাম্যমাণ ঔষধালয়।
জ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত গণ পরিবহন (মিনিবাস) – মিনিবাস, human hauler, ট্যুরিস্ট কোচ, লাক্সারি কোচ, স্কুল বাস।
ঝ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিমালিকানাধীন পরিবহন (মিনিবাস) – মিনিবাস, human hauler, ট্যুরিস্ট কোচ, লাক্সারি কোচ, স্কুল বাস।

ট-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিমালিকানাধীন ভা’রী পরিবহন (৭.৫ থেকে ২২ টন)।
ঠ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত দ্বৈত উদ্দেশ্যের গাড়ির- দুই কেবিনসহ পিক-আপ, একক কেবিনসহ পিক-আপ, যাত্রী ভ্যান, কারাগার ভ্যান, নিরাপত্তা ভ্যান, মানক ভ্যান, সৈন্যসহ চক্রযু’ক্ত যান, প্যানেল ভ্যান।

ড-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মাঝারি পাবলিক পণ্য।
থ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত সিএনজি অটোরিকশা (৪ স্ট্রোক)।
দ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিগত সিএনজি অটোরিকশা।
ন-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত হালকা পাবলিক পণ্য (৩.৫ টন পর্যন্ত)।
প -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ট্যাক্সি।

ফ -১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত অটো টেম্পো (পাবলিক)।
ব- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত গণসেবা (মিনিবাস)- ছোট (৩১-৪৫), মাঝারি (৪৬-৬০), বড় (৬১-৮০)। অ’তিরিক্ত বড় (৮১-৯৯), মিনিবাস (দ্বৈত-ডেকার)।

ভ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটর গাড়ি (অ’তিরিক্ত বড়)।
ম-১১ হতে ৫০ পর্যন্ত হালকা ব্যক্তিগত পণ্য (৩.৫ টন পর্যন্ত) ৫১৯৯ ডেলিভা’রি গাড়ি (২.৫ টন পর্যন্ত) এবং ডেলিভা’রি ভ্যান, মিনি ট্রাক, ৩-চাকার ভ্যান, ৩-চাকার ট্রাক।

য-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (যে কোন যানবাহন)।
র-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির কার্যালয় (যে কোন যানবাহন)।
ল-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটরসাইকেল (বড়, ১২৫ সিসির উপর) – প্যাডেলযু’ক্ত মোটরসাইকেল, স্কুটার, মোটরসাইকেল।

হ-১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত মোটরসাইকেল (মাঝারি, ৫১ থেকে ১২৫ সিসি)।
শ- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত বিশেষ উদ্দেশ্যের গাড়ি – পরিষ্কার করার গাড়ি, কংক্রিট মিশ্রণকারী/ পাম্পার, ক্র্যাশ টেন্ডার, মাটি খননকারী/ অ’পসারণ, ফোম টেন্ডার, ফর্কলিফ্ট, গ্র্যান্ডার, শোনেস, অ’বৈধ গাড়ি, মইক ক্যারিয়ার, মোবাইল ক্রেন, পেলোডার, পরিত্যক্ত গাড়ি, টোউ ট্রাক, টান্ডার।

স- ১১ হতে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিগত সেবার মিনিবাস- ছোট (৩১-৪৫), মাঝারি (৪৬-৬০), বড় (৬১-৮০), অ’তিরিক্ত বড় (৮১-৯৯), মিনিবাস (দ্বৈত-ডেকার)।
অ- ১১ থেকে ৯৯ পর্যন্ত মধ্যম পর্যায়ের ব্যক্তিগত গাড়ি (৩.৫ থেকে ৭.৫ টন)।
ই- ১১ থেকে ৬০ পর্যন্ত কৃষি উপকরণ– পাওয়ার টিলার, ট্র্যাক্টর।

উ -১১ থেকে ৯৯ পর্যন্ত ব্যক্তিগত ভা’রী গাড়ি (৭.৫ থেকে ২২ টন)– বোতল পরিবাহক, কার্গো ট্রাক (বদ্ধ অথবা খোলা), কার্গো ভ্যান, ট্রাক ডাম্প, ফ্ল্যাটবেড ট্রাক, লো বেড ট্রাক, পোল পরিবাহক, রেফ্রিজারেটেড ভ্যান, টিপার, প্যানেল ভ্যান, অবতরণিক ট্রাক।

এ- ১১ থেকে ৯৯ পর্যন্ড মোটরসাইকেল (ছোট, সর্বোচ্চ ৫০ সিসি)।
এই বিষয়ে বিআরটিএ এর পরিচালক লোকমান হোসেন মোল্লা বলেন, নম্বরপ্লেট প্রদানের ক্ষেত্রে বিআরটিএ’র নিয়ম অনুযায়ী গাড়ির সিসি প্রকারভেদ, ব্যবহার বিধির ক্যাটাগরি অনুযায়ী নম্বর প্লেট দেয়া হয়।

About Utsho

Check Also

সেই মা’রিয়াকে নিয়ে খেলায় মা’তলেন ডিসি

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজে’লার হেলতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামে পরিবারের সব স্বজন হা’রানো সেই মা’রিয়া সুলতানা এখনও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.