Breaking News

খুলনা বিভাগে করো’না শনাক্ত রোগী ৮ হাজার ছাড়ালো

খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৫০ জনের শরীরে করো’নাভাই’রাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে করো’না পজিটিভ ব্যক্তির সংখ্যা আট হাজার ছাড়াল। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ৪ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃ’ত্যুর সংখ্যা এখন ১৪১। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) মো. মনজুরুল মুরশিদ বৃহস্পতিবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বিভাগে নতুন করে ১৮২ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে সুস্থ হলেন ৩ হাজার ৭৬৪ জন। শনাক্ত বিবেচনায় বিভাগে সুস্থ হওয়ার হার প্রায় ৪৬ শতাংশ। খুলনার বিভাগের মধ্যে চুয়াডাঙ্গায় প্রথম করো’না রোগী শনাক্ত হয় গত ১৯ মার্চ। পরবর্তী ৭৩ দিনে শনাক্তের সংখ্যা ৫০০ ছাড়ায়। ১৪ জুলাই ১১৮তম দিনে রোগীর সংখ্যা সাড়ে ৭ হাজার ছাড়ায়। বৃহস্পতিবার ২০তম দিনে রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ছাড়াল।

নতুন শনাক্ত ২৫০ জনের মধ্যে খুলনা জেলায় ৬৪ জন, বাগেরহাটে ২ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১৩ জন, যশোরে ৬১ জন, ঝিনাইদহে ২৫ জন, কুষ্টিয়ায় ১৯ জন, মাগুরায় ১০, মেহেরপুরে ৩, নড়াইলে ২৮ এবং সাতক্ষীরায় ২৫ জন রয়েছেন।

অধিদপ্তরের দেওয়া হিসাবে সংক্রমণ ও মৃ’ত্যু—দুই সূচকেই বিভাগের মধ্যে খুলনা অনেক এগিয়ে। মোট সংক্রমিত ৮ হাজার ২১২ জনের মধ্যে ৩ হাজার ৩৬৪ জনই খুলনা জেলার। বিভাগের মোট রোগীর ৪১ শতাংশ খুলনার। এ ছাড়া বাগেরহাটে ৩৬০, চুয়াডাঙ্গায় ৩৩৬, যশোরে ১ হাজার ২১৭, ঝিনাইদহে ৫৬০, কুষ্টিয়ায় ১ হাজার ৭০, মাগুরায় ২৭০, মেহেরপুরের ১১৫, নড়াইলে ৪৬৩ এবং সাতক্ষীরায় ৪৫৭ জনের শরীরে করো’নাভাই’রাস শনাক্ত হয়েছে।

বিভাগে মৃ’তের সংখ্যা এখন ১৪১। এর মধ্যে খুলনায় সবচেয়ে বেশি ৪৯ জন মা’রা গেছেন। এ ছাড়া কুষ্টিয়ায় ২১, যশোরে ১৭, ঝিনাইদহ ও সাতক্ষীরায় ১০ জন করে, বাগেরহাটে ৯ জন, নড়াইলে ৮ জন, মাগুরায় ৭ জন, মেহেরপুরে ৬ জন এবং চুয়াডাঙ্গায় ৪ জন মা’রা গেছেন।

About Utsho

Check Also

যে ৫ কারণে বাংলাদেশে দ্রুত কমে যেতে পারে করো’না

বাংলাদেশে আশাবা’দী মানুষের সংখ্যা কম নয় এবং সংশয়বা’দীদের বি’রুদ্ধে আশাবা’দীরা সবসময় আশার আলো ছড়িয়ে থাকেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.