Breaking News

‘ওকে স্যার’ বলেই গু’লি, বুট দিয়ে সিনহার গলা চেপে ধরে লিয়াকত!

পু’লিশের গু’লিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্ম’দ রাশেদ খানের মৃ’ত্যুকে ‘পূর্ব পরিক’ল্পিত’ হ’ত্যাকা’ণ্ড বলে উল্লেখ করেছেন তার সফরসঙ্গী ছিলেন শাহেদুল ইস’লাম সিফাত।

গত শুক্রবার টেকনাফ থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে মেজর সিনহার সফরসঙ্গী ছিলেন তিনি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সিফাত বলেন, পু’লিশের যে ইন্সপেক্টর সিনহাকে গু’লি করেন,

তিনি মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন তখন, এবং তাতে মনে হয়েছে তিনি অ’পর প্রান্তের কারো নির্দেশ কার্যকর করতে গু’লি চালিয়েছেন। ফোনে কথা বলার সময় তিনি অন্যপ্রান্তের ব্যক্তিকে ‘স্যার’ বলে সম্বোধন করছিলেন।

অন্যপ্রান্তের কথার জবাবে তিনি বলেন ‘ঠিক আছে স্যার, আমি করছি’। তারপরই তিনি সিনহাকে লক্ষ্য করে গু’লি চালান। গত মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ত’দন্ত দল সিফাতের সঙ্গে কক্সবাজার কারাগারে দেখা করেন। সিফাত ত’দন্ত কর্মক’র্তাদের একথা বলেন ।

কারাগার অভ্যন্তরে সিফাতকে জিজ্ঞাসাবাদের সঙ্গে জড়িত সূত্র জানিয়েছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সিফাত জিজ্ঞাসাবাদে এ কথাও জানিয়েছে যে, সাবেক সে’না কর্মক’র্তা কখনই তার লাইসেন্সকৃত আগ্নেয়াস্ত্র বের করার চেষ্টা করেননি, এমন কি গু’লি খাওয়ার পরেও না।

ঘটনার পু’লিশি বক্তব্যকে পুরোই নাকচ করে দিয়েছেন সিফাত। পু’লিশ দাবি করেছে, তারা আত্ম’রক্ষার জন্য গু’লি চালাতে বাধ্য হয়েছিল। ত’দন্ত দলটি সিনহার অ’পর সতীর্থ শিপ্রা দেবনাথের সঙ্গেও কারাগারে কথা বলেছেন।

তিনিও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী। দুজনের বি’রুদ্ধেই পু’লিশ পৃথক দুটি মা’মলায় হ’ত্যা চেষ্টা এবং মা’দকদ্রব্য বহন করার অ’ভিযোগ এনেছে। শিক্ষার্থীদের নিয়ে কক্সবাজারে মেজর (অব.) সিনহা একটি প্রামান্যচিত্র তৈরির কাজ করছিলেন।

ত’দন্তকারী দলের কাছে ওই রাতের কথা স্ম’রণ করতে গিয়ে সিফাত বলেন, ‘শুক্রবার রাত সোয়া নয়টা দিকে আম’রা কক্সবাজারের টেকনাফ উপজে’লার বাহারচড়া ইউনিয়নের শুটিং স্পট থেকে ফিরছিলাম। আম’রা আর্মড পু’লিশ ব্যাটালিয়ন এবং বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের দুটি চেকপোস্ট পার হয়ে আসি, সবকিছু ঠিকই ছিল।’

ত’দন্ত কমিটিকে সিফাত বলেন, ‘কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভের শামলাপুর চেকপয়েন্টে এলে তাদের থামা’র ইঙ্গিত দেয় পু’লিশ – ওই রাতে এটা ছিল তাদের তৃতীয় চেকপোস্ট। সিনহা স্যার গাড়ি থামালে পু’লিশ ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী চেঁচিয়ে আমাদের সবাইকে হাত উপরে উঠাতে বলে। তার কথা মতো আম’রা তাই করি।

সিনহা স্যার গাড়ি থেকে নেমে যান আর আমি গাড়ির সামনে সিটে বসে থাকি। তিনি নিজের পরিচয় দেন। পু’লিশকে জানান যে তিনি বাংলাদেশ সে’নাবাহিনীর একজন প্রাক্তন মেজর। তিনি এমনকি পু’লিশকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার পরিচয় যাচাই করারও প্রস্তাব দেন। কিন্তু লিয়াকত কোনো রকম সতর্ক না করেই তাকে গু’লি করতে শুরু করে।’

সিফাত আরো বলেন, ‘গু’লি করেই ক্ষান্ত হয়নি লিয়াকত, সিনহা স্যার যখন যন্ত্র’ণায় গোঙাচ্ছিলেন বুট দিয়ে তার গলা চেপে ধরে সে। কর্তব্যরত পু’লিশ তখন আমাদের পরিচয় জিজ্ঞাসা করেন।’

সিফাত ত’দন্ত দলকে বলেন, ‘ওই রাতে তারা কেউই মাতাল ছিল না বা কেউই কোনো মা’দক বহন করছিল না। এই এলাকা’টা আম’রা চিনি ২৮ দিন ধরে। মেরিন ড্রাইভে একাধিক চেকপোস্ট রয়েছে জেনেও কোন বুদ্ধিতে এই ঝুঁ’কি নেব?’

স্থানীয় গ্রামবাসী তাদের ডা’কাত বলে চি’ৎকার করেছে পু’লিশের এই দাবিও একেবারে মিথ্যা বলেন সিফাত। তিনি ত’দন্ত দলকে বলেন, ‘টেকনাফ থেকে ফেরার পথে আমাদের দু’জন স্থানীয় লোকের সাথে দেখা হয়, তারা আমাদের পরিচয় জানতে চেয়েছে, তবে তারা আমাদেরকে দেখে কখনই ডা’কাত বলে চি’ৎকার জুড়ে দেয়নি।’

সিনহার আরেক সতীর্থ শিপ্রা দেবনাথ, শুক্রবার রাতে স্থানীয় একটি রিসোর্টে ছিলেন। তিনি ত’দন্ত দলকে বলেন, ‘সেই ৩ জুলাই থেকে তিনি ডকুমেন্টারি দলটার সঙ্গে কাজ করছেন। প্রাক্তন সে’না কর্মক’র্তাকে তিনি কখনই রাগতে বা উত্তেজিত হতে দেখেননি।’

তার কথায় সায় পাওয়া যায় রিসোর্ট মালিক মনজুরুল কবিরে কথাতেও। তিনিও জানান, ‘এখানে যতদিন আছেন সিনহাকে তিনি পুরো একজন নম্র-ভদ্র ব্যক্তি হিসেবেই পেয়েছেন। আমি তাকে, এমন কি কখনও কারও সঙ্গে উঁচু গলাতে কথা বলতে দেখিনি।

সে কী’ভাবে পু’লিশকে ব’ন্দুক ঠেকাবে!’ কক্সবাজারের অ’তিরিক্ত জে’লা ম্যাজিস্ট্রেট ও ত’দন্ত কমিটির সমন্বয়ক শাহ’জাহান আলী জানিয়েছেন, ‘তারা দ্রুতই ত’দন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন।’

About Utsho

Check Also

সেই মা’রিয়াকে নিয়ে খেলায় মা’তলেন ডিসি

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজে’লার হেলতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামে পরিবারের সব স্বজন হা’রানো সেই মা’রিয়া সুলতানা এখনও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.